1. neayzmorshed2020@gmail.com : samikkhon :
August 14, 2022, 7:32 am

লোভে পাপ পাপে মৃত্যু! জরিমানা ৭৭ হাজার টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক, আক্কেলপুর:
  • প্রকাশের সময় : Wednesday, August 3, 2022
  • 52 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

লোভ মানব চরিত্রের এক দুর্দমনীয় প্রবৃত্তি। মানুষ যখন লোভের পথে পা বাড়ায় তখন তাঁর হিতাহিত জ্ঞান থাকে না। লোভের কারনে মানুষ ক‚পথে ধাবিত করে আর এজন্যই মানব জীবনের পরিণাম অনেক সময় দুঃখময় হয়ে উঠে। বলছি জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার চন্দনদীঘি বাজারের সার ব্যবসায়ী আসলাম হোসেন কথা।

 

তিনি গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় লক্ষিভীটা গ্রামের এক কৃষক আজিজার রহমানের কাছে আগের মজুদ করা ইউরিয়া সার বেশি লাভের আশায় সরকার ঘোষিত বর্তমান মূল্যে বিক্রি করেছিলেন। এতেই বাধে বিপত্তি। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গেলে তিনি আজ বুধবার দুপুর ১২ টার দিকে ওই দোকান মালিককে ভ্রাম্যমান আদালতে ৩০ হাজার টাকা জরিমান করেছেন।

 

একই সময় অপর এক সার ব্যবসায়ী আবু কালামের ১০ হাজার টাকা, মোহনপুর বাজারের আকরাম হোসেনের ২ হাজার, মেহেদী হাসানের ৩০ হাজার এবং তিলকপুর বাজারের আতোয়ার রহমানের ৫ হাজার টাকাসহ সর্ব মোট ৭৭ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত।

 

 

আজ দুপুর ১২ টা থেকে দুইটা পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে ওই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এসএম হাবিবুল হাসান। এসময় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ইমরান হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

 

 

উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার কার্যালয় ও কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, সরকার ইউরিয়া সারের দাম প্রতিকেজি ৬ টাকা ও প্রতিবস্তায় (৫০ কেজি) বেড়েছে ৩০০ টাকা। নতুন দাম ডিলার পর্যায়ে ২০ টাকা আর কৃষক পর্যায়ে (খূচরা) ২২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত ১ আগষ্ট থেকে সরকার ঘোষিত নির্ধারিত মূল্যে সার উত্তেলনের কথা থাকলেও আক্কেলপুর উপজেলার ডিলারদের ঘরে  বুধবার (৩ আগষ্ট) সকাল থেকে ইউরিয়া সার ঢুকছে।

 

এর আগে অর্থাৎ ১ আগষ্টের আগের মজুদ করা সার পূর্বের মূল্যেই বিক্রি করতে হবে যা একজন ডিলার এবং খুচরা বিক্রেতার দোকানে স্টক রেজিষ্ট্রার থাকতে হবে। যেখানে সারের সকল হিসেব লিপিবদ্ধ রাখতে হবে।

 

 

চন্দনদিঘী বাজারের সার ব্যবসায়ী আসলাম হোসেন বলেন, আমি জানতাম না যে আগের মজুদকৃত সার বর্তমান মূল্যে বিক্রি করা যাবে না। এই বিষয়টি কৃষি অফিসের লোক আমাকে আগে জানাইনি, তাঁই আমি কিছু কৃষকের কাছে সরকার ঘোষিত বর্তমান মূলে বিক্রি করেছিলাম, যা ভ‚ল করেছিলাম।

 

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ইমরান হোসেন বলেন,  বুধবার থেকে উপজেলার ডিলার দের ঘরে নতুন মূল্যের সার ঢুকতেছে। এর আগে যাদের ঘরে সার মজুদ ছিল সেগুলো আগের রেটে বিক্রি করতে হবে। যদি কেউ বেশি দামে বিক্রি করে তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কৃষি অফিসের লোকজন সব সময় উপজেলার প্রতিটি সার ব্যবসায়ীদের দোকন ও ডিলারদের স্টক রেজিষ্ট্রার চেক করে দেখবেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এসএম হাবিবুল হাসান বলেন, সরকার ইউরিয়া সারের মূল্য বৃদ্ধি করেছে। দোকানীদের মধ্যে দেখা যাচ্ছে ইউরিয়া সারের পাশা পাশি অন্যান্য সারের দামও বাড়ায়ে দিয়েছে। তাঁদের কাছে পুরোন স্টক থাকার পরেও তাঁরা নতুন দামে বিক্রি করছে।

 

এই রকম অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা অভিযান পরিচালনা করি, সেই অভিযানে উপজেলার পাঁচটি প্রতিষ্ঠানকে ৭৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তাঁদেরকে চুড়ান্তভাবে সর্তক করা হয়, এই রকম যদি ভবিষ্যতে হয় তাহলে তাঁদের প্রতিষ্ঠান সিলগালা ও লাইসেন্স বাতিলসহ সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। এই উপজেলায় সারের যাতে ক্রাইসিস না হয় যারা কৃষক তাঁরা নায্য মূল্যে সার ক্রয় করতে পারে সে জন্য উপজেলা প্রশাসন সদা তৎপর রয়েছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2021 samikkhon.com
samikkhon :
x